Thikana News
১৪ জুলাই ২০২৪
  1. ই-পেপার
  2. চলতি সংখ্যা
  3. বিশেষ সংখ্যা
  4. প্রধান সংবাদ
  5. আমেরিকার অন্দরে
  6. বিশ্বচরাচর
আমেরিকা রবিবার, ১৪ জুলাই ২০২৪

আমেরিকার উদ্দেশে লেখা লাদেনের সেই চিঠি ভাইরাল

আমেরিকার উদ্দেশে লেখা লাদেনের সেই চিঠি ভাইরাল ছবি : সংগৃহীত
আল কায়েদার প্রয়াত প্রধান ওসামা বিন লাদেনের একটি চিঠি সমাজিক যোগাযোগের বিভিন্ন মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে। আমেরিকানদের উদ্দেশ্যে দেয়া লাদেনের চিঠির একটি ভিডিও প্রকাশ্যে আসার পর নতুন করে তৈরি হয়েছে জল্পনা। তাতে ৯/১১ হামলাকে সমর্থন করার পাশাপাশি ইসরায়েল-ফিলিস্তিন প্রসঙ্গও তুলে ধরেছেন আল কায়েদা প্রধান।

বার্তা সংস্থা রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, প্রায় ২০ বছরের পুরোনো ওই চিঠি চলতি সপ্তাহে টিকটকের একটি একাউন্ট থেকে ব্যাপক আকারে ছড়িয়ে পড়ে। গেল বৃহস্পতিবার টিকটক কর্তৃপক্ষ ওই চিঠি সম্বলিত ভিডিও প্ল্যাটফর্মটি থেকে মুছে ফেলার ঘোষণা দিয়েছে।

এনবিসি নিউজ জানিয়েছে, চিঠিটির বার্তা ইসরায়েলের প্রতি মার্কিন সমর্থন সম্পর্কে নতুন করে বিতর্কের জন্ম দিয়েছে। এ পরিপ্রেক্ষিতে টিকটক ভিডিওটি সরানোর ঘোষণা দিয়েছে। টিকটকে ‘লেটার টু আমেরিকা’ হ্যাশট্যাগ ব্যবহার করে অনেকে ওই ভিডিও শেয়ার করেন। লিনেট অ্যাডকিনস নামের এক ব্যবহারকারীর অ্যাকাউন্টে ওই চিঠির ভিডিও প্রায় ১ কোটি ৩৫ লাখ বার দেখা হয়েছে। ভিডিওটি নজরে আসার সঙ্গে সঙ্গে ব্যবহারকারীরা দ্য গার্ডিয়ানে ২০০২ সালের ২৪ নভেম্বর প্রকাশিত চিঠির ট্রান্সক্রিপ্টের লিঙ্ক শেয়ার করা শুরু করেন।

জানা গেছে, আল কায়েদা প্রধানের চিঠিতে ২০০১ সালে হামলার পর লেখা হয়েছিল। যা ছিল মার্কিন মাটিতে সবচেয়ে বড় সন্ত্রাসবাদী হামলা। হামলাকে মান্যতা দেয়ার পাশাপাশি দেয়া হয়েছিল ইসরায়েলের পাশে থাকার বার্তা। সেই সঙ্গে ইসরায়েল-ফিলিস্তিন সমস্যা না মেটানোর জন্য চিঠিতে মার্কিন রাষ্ট্রপ্রধানদের কাঠগড়ায় দাঁড় করিয়েছিলেন লাদেন। সেই সঙ্গে খ্রিস্টানদের রক্ত দিয়ে মার্কিন ঔদ্ধত্যের জবাব দেয়া হবে বলেও হুঁশিয়ারি দিয়েছিলেন।

প্রসঙ্গত, মধ্যপ্রাচ্যের সংঘাত নিয়ে ইতিমধ্যে ইসরায়েলের পাশে দাঁড়িয়েছে আমেরিকা। সেই সঙ্গে সমস্ত ধরনের সামরিক সহায্যের দেয়া হয়েছে আশ্বাস। কিন্তু গাজায় ইসরায়েলি সেনার হামলায় শিশু সহ হাজার হাজার লোকের মৃত্যুর ঘটনার পর মার্কিনবাসী কার্যত দু’ভাগ। কেউ কেউ জো বাইডেনের নীতির সমালোচনা করেছেন। তারই মধ্যে লাদেনের চিঠির ভিডিও ফের একবার প্রকাশ্যে আসাকে যথেষ্ঠ ইঙ্গিতপূর্ণ বলে মনে করা হচ্ছে।

২০০২ সাল থেকে আমেরিকার একটি প্রথম শ্রেণির সংবাদমাধ্যমে ওয়েবসাইটে ওসামা বিন লাদেনের চিঠি নথিভুক্ত ছিল। কিন্তু ভাইরাল হওয়ার পর ওয়েবসাইট থেকে তা সরিয়ে দেয়া হয়েছে। আর ওয়েবসাইট থেকে চিঠিগুলো সরিয়ে দেয়ার ফলে প্রকাশিত চিঠির ভিডিওগুলো নিয়ে মানুষের মধ্যে আগ্রহ আরো বেড়েছে বলে জানা গেছে। তবে, ওয়াবেসাইট থেকে চিঠিগুলো সরিয়ে ফেলা নিয়ে মার্কিন সংবাদমাধ্যমটির তরফে কোনো কারণ জানানো হয়নি।

উল্লেখ্য, ২০১১ সালের মে মাসে পাকিস্তানের অ্যাবোটাবাদের একটি বাড়িতে আল কায়েদা প্রধান ওসামা বিন লাদেন লুকিয়ে আছে বলে বিশেষ সূত্রে খবর পায় মার্কিন সেনাবাহিনী। এরপর সেই বাড়িতে চালানো হয় অভিযান। মার্কিন সেনার হাতে মৃত্যু হয় আল কায়েদা প্রধানের।


ঠিকানা/এম

কমেন্ট বক্স